আপনার সুরক্ষায় অপরিহার্য সানগ্লাস

shopno-khan-1
মডেল: স্বপ্ন খান

সময়ের সঙ্গে পরিবর্তন ঘটে ফ্যাশনের। বদলায় অনুসঙ্গ। তবে কিছু অনুসঙ্গ সারাজীবনের সঙ্গী হয়ে থাকে। কারণ তা শুধু ফ্যাশনের মাত্রা ধরে রাখে না, রাখে শরীরের মাত্রাও। তেমনি একটি অনুসঙ্গ হল সানগ্লাস। সব বয়সের মানুষের সানগ্লাস ব্যবহারের প্রবণতা দেখা যায়। তবে তরুন প্রজন্মের মধ্যে এটি ব্যবহারের প্রবণতা একটু বেশি থাকে।

আমাদের দেশে শীত ঋতুতে বায়ুমণ্ডল থাকে অত্যান্ত ধুলাবালি আর সূর্যের ক্ষতিকর অতিবেগুনী রশ্মি সমৃদ্ধ। তাই অন্য ঋতুতে এর ব্যবহার থাকলেও শীতে বেড়ে যায় দ্বিগুন। তবে কেউ কেউ সারা বছরই সানগ্লাস ব্যবহার করে থাকেন। শীতে ধুলাবালির সঙ্গে প্রচুর পরিমানে ছোট পোকামাকড়েরও আবির্ভাব ঘটে। ফলে খালি চোখে পথ চলতে গেলে এসব পোকামাকড় চোখে ঢুকে বিপত্তি ঘটায়। তাই যারা বাইকার আছেন, যাদের বেশি বেশি ভ্রমণ করতে হয় এবং যাদের ধুলাবালি প্রবণ এলাকায় চলাফেরা করতে হয় তাদের জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করা সবচেয়ে জরুরি।
এসব কারণ ছাড়াও শুধু ফ্যাশনের কারণে তরুণদের কাছে সানগ্লাসের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে। আর তাই রাজধানী ঢাকাসহ দেশের ছোটবড় সব শহরেই চশমার দোকানগুলোয় পাওয়া যায় বাহারি সব সানগ্লাস।

সানগ্লাস শীতের মৌসুমে অনেকের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ। শীতে সানগ্লাসের পাশাপাশি গগলসের ব্যবহারও পরিলক্ষিত হয়। অনেকে আবার হ্যাটের সঙ্গে সানগ্লাস ব্যবহার করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। বিভিন্ন ধরনের সানগ্লাসের মধ্যে পাইলট গ্লাস, রাউন্ড সেপ গ্লাস, স্কয়ার সেপ গ্লাস, মার্কারি গ্লাস, স্পোর্টস গ্লাস প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

পথে প্রবাসে/ সামিয়া ইসলাম।

ফ্যাশানে ছেলেদের পাঞ্জাবী

fb_img_1479125142583
মডেলঃ সাগর।

 

 

যুগে যুগে উৎসব উদযাপনের প্রক্রিয়া তে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে, মানুষের রুচিতেও এসেছে এ পরিবর্তন। আনন্দ উদযাপনের এই এক পন্থা আজও সবাই একই ভাবে মেনে আসছে। যেকোন অনুষ্ঠানে একটা হলেও নতুন পোশাক সবার চাই-ই-চাই। নতুন পোশাক ছাড়া যে কোন অনুষ্ঠান যেন অসম্ভব।

বর্তমান সময়ে ছেলেরা পাঞ্জাবীর ক্ষেত্রে রঙকেই প্রাধান্য দিয়ে থাকে। একটা সময় ছিলো যখন পাঞ্জাবীর রঙ বলতে সাদা রঙটাকেই প্রাধান্য দেয়া হতো। কিন্তু বর্তমান সময়টা ভিন্ন । এখনকার ছেলেদের কাছে পছন্দটা একটু আলাদা হয়ে থাকে। বিভিন্ন রঙের পাঞ্জাবী এখন শপিংমল গুলিতে দেখা যায়। ফলে পাঞ্জাবি কেনার ক্ষেত্রে ছেলেরা তাদের নিজেদের শরীরের রঙ, উচ্চতা এবং স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখে। এমন কিছুই পরা উচিৎ নয় যেটা মানানসই নয়। ছেলেদের পোষাকের ভেতর আকর্ষণের কেন্দ্রেবিন্দুতে থাকে পাঞ্জাবী। পাঞ্জাবী ছাড়া ছেলেদের বর্তমান সময়ের কোন অনুষ্ঠান সম্পূর্ন হয় না বললেই চলে ।আর সে জন্য আপনাকে কেনাকাটা করার সময় কাপড়ের মান, রঙ আর স্টাইল এই তিনটি বিষয়ের উপর অবশ্যই নজর রাখতে হবে।

পথে প্রবাসে/ সামিয়া ইসলাম।

ছেলে মেয়েদের ফ্যাশনে অত্যন্ত জরুরী যে বিষয়গুলো।

বর্তমান যুগে শুধুমাত্র মেয়েরাই ফ্যাশন সচেতন নন। ছেলেরাও বেশ ফ্যাশন সচেতন হয়ে উঠেছেন। তবে ফ্যাশন সচেতন ছেলে বলতে এটা বুঝায় না যে তারা ব্র্যান্ডের পোশাক ছাড়া কাপড় এবং ব্র্যান্ডের এক্সেসরিজ বাদে কিছু ব্যবহার করতে চান না। একটু বুদ্ধি খাটিয়ে হাতের কাছে পাওয়া নানা জিনিস এবং কম খরচেও অনেক ফ্যাশনেবল হয়ে ওঠা যায়। তাই পয়সা খরচ করে নয় মাথা খাটিয়ে ফ্যাশনেবল হয়ে উঠুন। আজকে চলুন দেখে নেয়া যাক ছেলেদের ফ্যাশনের জরুরী কিছু বিষয়।বিস্তারিত…

হালকা শীতের পোশাকে হয়ে উঠুন ফ্যাশনেবল…

শীত শুরু হলো। সকালে কাজে বের হলে কিংবা রাতে বাড়ি ফেরার সময় কুয়াশা  নামিয়ে আনে শীত। মৌসুমটি বেশ উপভোগেরও বটে। এমন সময়ে না ভারি শীতের পোশাক পরা যায়, না বেছে নেয়া যায় সাধারণ পোশাক। তবে এ হালকা শীতটা কিন্তু ফ্যাশনের জন্য দারুণ উপযোগী। চমৎকার সব স্টাইলিশ পোশাক হতে পারে আপনার এ সময়ের সঙ্গী।

শীত শুরু হলো। সকালে কাজে বের হলে কিংবা রাতে বাড়ি ফেরার সময় কুয়াশা  নামিয়ে আনে শীত। মৌসুমটি বেশ উপভোগেরও বটে। এমন সময়ে না ভারি শীতের পোশাক পরা যায়, না বেছে নেয়া যায় সাধারণ পোশাক। তবে এ হালকা শীতটা কিন্তু ফ্যাশনের জন্য দারুণ উপযোগী। চমৎকার সব স্টাইলিশ পোশাক হতে পারে আপনার এ সময়ের সঙ্গী।বিস্তারিত…

শীতে ছেলেদের পোশাক

15049827_1021643974630211_1591586805_n
মডেল: সাগর

গরমকে বিদায় জানিয়ে কুয়াশার চাদর মুড়ি দিয়ে শীতের আগমন ঘটেছে। শীতের শুরুতেই মনে হচ্ছে এবারের শীতের প্রকোপ অন্য বছরগুলোর চেয়ে একটু বেশি হবে! তাই তরুণ থেকে বৃদ্ধ সবার মাঝেই দেখা যাচ্ছে শীত ঠেকানোর প্রস্তুতি। শীতকালে ছেলেদের পোশাকে রয়েছে এক ভিন্ন মাত্রার স্টাইল। আর ছেলেদের স্টাইলিশ শীত পোশাক নিয়েই আমাদের আজকের আয়োজন।বিস্তারিত…

জিনসের জাদু

মোটা সুতার পোশাক নাকি ক্রেতারা কম পছন্দ করেন! কিন্তু জিনস? যুগের পর যুগ ধরে জনপ্রিয়তায় অন্যদের টেক্কা দিচ্ছে। তরুণদের কাছে তো বটেই, মধ্যবয়সীরাও পরছেন জিনস। সাদা কার্পাস তুলা দিয়ে তৈরি মোটা সুতা। সেই সুতায় বোনা ডেনিম কাপড়ের ওপর নানা ধরনের রং আর ওয়াশের পর তৈরি হয় জিনসের একেকটি পোশাক।

পথে প্রবাসে
জিনস তারুণ্যের প্রতীক, তাই তো ফ্যাশনে এটি কখনো পুরোনো হয় না। মডেল: সাগর

সারা বছর তো আছেই, শীত আসার আগে আগে ডেনিমের পোশাকের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। ফ্যাশন হাউস ওটুর প্রধান ফ্যাশন পরামর্শক আসিফ ইকবাল যোগ করলেন, তরুণদের মধ্যে ডেনিমের জনপ্রিয়তার কারণেই নানা ধরনের ওয়াশ হচ্ছে আজকাল। বিশেষ করে শীতকালে জিনসের পোশাকে বেশি বৈচিত্র্য দেখা যায়। কারণ, এই সময়ে জিনসের চাহিদা বেশি। টপ ও বটম—দুই ধরনের জিনসের পোশাকই পরছেন তরুণেরা।বিস্তারিত…

ভারতের পোশাক বাণিজ্যে বিবর্তনের ছোঁয়া

ভারত এবং ব্রিটেনের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্কের অন্যতম একটা অংশ ছিল টেক্সটাইল লেবেল, দুই দেশের শিল্প চিহ্নিত করার জন্যই ওই লেবেল বা বিশেষ চিহ্ন ব্যবহার করা হতো।

এই লেবেলগুলো আসলে এক ধরনের ‘টিকেট’ বা বলা যায় ‘পরিবহনের পণ্য আদানপ্রদানের টিকেট’, পণ্য এক দেশ থেকে অন্য দেশে শিপমেন্টের সময় কাপড়ের মধ্যে এ লেবেলগুলো লাগানো হতো। আর এসব লেবেল এখন গুরুত্বপূর্ণঐতিহাসিক শিল্প হয়ে দাঁড়িয়েছে।বিস্তারিত…

২৯ বছর বয়সে ১৪কন্যার মা, ছেলে না হলে আরো…..

২৯ বছর বয়সে ১৪কন্যার মা হয়েছেন তিনি। নাম তার অগাস্টিনা হিগুয়েরা। তবে এখনই থামছেন না তিনি। ঘোষণা দিয়েছেন তার কোল জুড়ে যতদিন না একটি পুত্রসন্তান আসবে ততদিন সন্তান জন্ম দিয়ে যাবেন।

এরই মধ্যে ‘সুপারমম’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন তিনি। হবেনই না কেনো? মাত্র দুই মাস আগে তিনি জন্ম দিয়েছেন জমজ কন্যা। তারও আগে আরো দুই দফা জমজ কন্যার জন্ম দেন এই মা।বিস্তারিত…

গরমে ডাবের পানির উপকারিতা

গরমে শরীর প্রায়ই নিস্তেজ হয়ে আসে। এ সময় স্বস্তি এনে দিতে পারে ডাবের পানি। ডাবের পানি যেমন উপাদেয় তেমনি স্বাস্থ্যকর। এর সবচেয়ে আশ্চর্য গুণ হচ্ছে, এটি দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে। তাছাড়া ডাবের শাঁসে যে ক্যালরি রয়েছে তা কর্মক্ষমতা বাড়ায় এবং চেহারায় বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।

ডাবের পানিতে যে প্রাকৃতিক শর্করা ও মিনারেল রয়েছে তা শরীরকে শীতল ও আর্দ্র রাখে। এজন্য দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় যোদ্ধাদের স্যালাইনের বিকল্প হিসেবে ডাবের পানি দেয়া হতো। এর ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম ও ফাইবার কর্মশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

ডাবের পানি খেলে দীর্ঘ সময় পেট ভরা থাকে এবং ক্ষুধার প্রবণতা কমে আসে। ফলে কম খাওয়া হয়। এতে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। ডাবের পানিতে কোনো চর্বি নেই, বরং এটি শরীরের অতিরিক্ত চিনি শোষণ করে। ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে। ডাবের পানি শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয়। ফলে গরমের সময়ও শরীর সুস্থ ও সতেজ থাকে।

পথে প্রবাসে//বিএম ।

চুল পড়া বন্ধ হবে দুদিনে

চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যায় কমবেশি সবাই ভোগেন। এর ফলে বয়স বাড়ার আগেই আপনার মাথায় টাক পড়তে শুরু করে। এই সমস্যার সমাধানে সরিষার তেল ও দারুচিনি গুঁড়া ব্যবহার করুন। প্রাকৃতিক এই উপাদান দুটি অনেক দ্রুত আপনার চুল পড়া সমস্যার সমাধান করবে। কীভাবে এই উপাদান দুটি চুলে ব্যবহার করবেন, সে সম্বন্ধে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটের জীবনধারা বিভাগে। একনজরে চোখ বুলিয়ে নিন।

বিস্তারিত…

শিরোনাম